সিলেট ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

সুনামগঞ্জে নিখোঁজ হয়েছে ২ কনে : সন্ধান করছেন পিতা রমজান মিয়া

admin
প্রকাশিত আগস্ট ২২, ২০২৩, ০১:৪৬ অপরাহ্ণ
সুনামগঞ্জে নিখোঁজ হয়েছে ২ কনে : সন্ধান করছেন পিতা রমজান মিয়া

আল-হেলাল,সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের রঙ্গারচর ইউনিয়নের কান্দি ছমেদনগর গ্রাম থেকে নিখোঁজ হয়েছে ২ কনে শিশু। সোমবার (২১ আগস্ট) সন্ধ্যা ৭টার সময় পিতা রমজান মিয়ার বাড়ী থেকে শিশু দুটি নিখোঁজ হয়। নিঁেখাজ হওয়া শিশুরা হচ্ছে ফারজানা আক্তার (১৫) ও মারজানা আক্তার (১২)। তারা রঙ্গারচর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের কান্দি ছমেদনগর গ্রামের মোঃ রমজান মিয়ার কন্যা। জানা যায়, ৪ কনে সন্তানের পিতা রমজান মিয়ার সাথে তার স্ত্রী আছমা খাতুনের পারিবারিক কলহের কারণে সুনামগঞ্জের আমল গ্রহনকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত সদর জোনে সিআর ১১/২০২৩ নং মামলা বিচারাধীন রয়েছে। মামলাটি বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন থাকাবস্থায় ৪ কনের মধ্যে বড় ৩ কনে পিতার কাছে এবং ছোট কনে মিনহা (৪) মাতার কাছে গত ১০ মাস যাবৎ অবস্থান করছিল। এর মধ্যে গত রমজান মাসের পূর্বে মঙ্গলকাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৩নং কনে মাহিয়া আক্তার (৯) কে তার মাতা আছমা খাতুন নিয়ে যায়। এরপর থেকে স্থানীয় জাহাঙ্গীরনগর ও রঙ্গারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেম্বারদের জ্ঞাতসারে শিশু মাহিয়া ও মিনহা তাদের মায়ের কাছে অবস্থান করছে। এদিকে ৩ কনের মধ্যে পিতার কাছে থাকা বড় ২ কন্যা যথাক্রমে ফারজানা আক্তার ও মারজানা আক্তার সোমবার সন্ধ্যা ৭টার সময় হঠাৎ করে নিখোঁজ হয়। ঐ সময় বাড়ীতে বিদ্যূৎ ছিলনা। অসহায় পিতা রমজান মিয়া স্বশুড়বাড়ী সদর উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের কাইয়ারগাঁও গ্রামে মেম্বার আনোয়ার হোসেন বাবুলসহ অন্যান্য লোকজনদের মাধ্যমে তার কনে শিশুদের অনুসন্ধান অব্যাহত রেখেছেন। পাশাপাশি অন্যান্য আত্মীয় স্বজনদের বাড়ীতেও অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন। ঘটনাটি মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৪ টায় এবং আগের দিন সোমবার রাত ১২টায় সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ডিউটি অফিসারের কাছে জানালে কর্তব্যরত কর্মকর্তা হারানো ২ কনের পিতা রমজান মিয়াকে আরো অনুসন্ধানের পরামর্শ দিয়েছেন। শিশুদের প্রতীক্ষায় এখনও প্রহর গুনছেন রমজান মিয়া। নিজের শিশুদের সন্ধানের ব্যাপারে তিনি আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ সকলের সাহায্য কামনা করেছেন।