সিলেট ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

গোয়াইনঘাটে ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্যের মামলায় চেয়ারম্যানের ভাই গ্রেফতার

admin
প্রকাশিত আগস্ট ৩১, ২০২৩, ০৬:১৩ পূর্বাহ্ণ
গোয়াইনঘাটে ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্যের মামলায় চেয়ারম্যানের ভাই গ্রেফতার

গোয়াইনঘাটে ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্যের মামলায় চেয়ারম্যানের ভাই গ্রেফতার
নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়াইনঘাট

সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. গোলাম কিবরিয়া হেলালের সহোদর মহিবুর রহমান কতৃক এক সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নির্বাচিত নারী সদস্যকে শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় গোয়াইনঘাট থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে। মামলা নং ৩২ তারিখ ৩০/০৮/২০২৩ইং।

মামলার প্রধান আসামি মুহিবুর রহমানকে গোয়াইনঘাট থানার এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন বিকেল ৪ টায় পূর্ণানগর গ্রামের নিজ বাড়িতে থেকে গ্রেফতার করেন।

নির্যাতিত সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য প্রবাসী রাণী দাস পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়নের পূর্ণানগর গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা। এঘটনায় শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত ওই নারী সদস্য বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

নির্যাতিত সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য প্রবাসী রাণী দাসের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, বুধবার (৩০ আগস্ট) সকাল ১১টার দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলার পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ গোলাম কিবরিয়া হেলালের আপন ভাই মহিবুর রহমান ইউনিয়ন পরিষদের গ্রামপুলিশের মাধ্যমে পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের নারী সদস্য প্রবাসী রাণী দাসকে বাড়ীতে ডেকে নিয়ে আসেন। এ সময় মুহিবুল কিবরিয়া প্রতিবন্ধী ভাতা সংক্রান্ত একটি বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্য প্রবাসী রাণী দাসের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে প্রবাসী রাণীর উপর অতর্কিত হামলা শুরু করেন। এবং প্রভাসী রাণী দাসের শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালান। সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্যের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন এবং তাকে মুহিবুর রহমানের হাত থেকে উদ্ধার করে গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। তিনি বর্তমানে গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মুহিবুর রহমান বলেন,পূর্ণানগর গ্রামের কয়েকজন মহিলার নিকট থেকে প্রতিবন্ধী ভাতা ও বিধবা ভাতা দেয়ার আশ্বাস দিয়ে সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য প্রবাসী রাণী দাস কয়েক হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। উনি ও আমি একই গ্রামে বসবাস করার কারণে অনেকেই আমাদের বাড়িতে এসে প্রতিবন্ধী ও বিধবা ভাতা পেতে প্রবাসী রাণীকে টাকা দিয়েছেন বলে অবগত করেন। আজ প্রবাসী রাণী দাস পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় অর্থাৎ আমাদের বাড়ীতে আসলে উক্ত বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাই। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। এর বাহিরে উনার সাথে আমার কোন সমস্যা হয়নি।

পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়নের ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য ও পূর্ণানগর গ্রামের বাসিন্দা প্রবাসী রাণী দাস প্রতিবন্ধী ভাতা ও বিধবা ভাতা দেয়ার নামে কারো নিকট থেকে টাকা নেননি বলে জানান।

প্রবাসী রাণী দাস জানান, বিগত সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে মুহিবুর রহমানের ভাতিজা ইন্সাদ হোসেন রাজীবকে আমি ভোট না দেয়ায় তখন থেকে এই পরিবারটি আমার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার ও বিভ্রান্তী ছড়াচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ আমাকে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করা হয়েছে।

গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম নজরুল ইসলাম বলেন, গোয়াইনঘাট উপজেলা পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়নের ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের নারী সদস্য পূর্ণানগর গ্রামের বাসিন্দা প্রবাসী রাণী দাস বাদী হয়ে ও মুহিবুর রহমানকে প্রধান আসামি করে গোয়াইনঘাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তার লিখিত অভিযোগের বিষয়টি তদন্তে করে প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় গোয়াইনঘাট থানায় মুহিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।