সিলেট ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

বৈধ গরুর হাটের ইজারা নিয়ে অবৈধ পথে ভারতীয় গরু প্রবেশ করে লাখ লাখ টাকা আদায়

admin
প্রকাশিত মার্চ ২০, ২০২৩, ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ
বৈধ গরুর হাটের ইজারা নিয়ে অবৈধ পথে ভারতীয় গরু প্রবেশ করে লাখ লাখ টাকা আদায়

মোঃ ফখরুজজামান:

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলাধীন আব্দুল গফুর ওয়াকফ এস্টেস্টের মালিকানাধীন ‘সড়কের বাজার’ বৈধ গরুর হাটের ইজারা নিয়ে অবৈধ পথে ভারতীয় গরু প্রবেশ করে লাখ লাখ টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে যুব লীগ নেতা বাজারের ইজারাদার মো. সাহাব উদ্দিন উরফে দালাল সাহাব এর বিরুদ্ধে।

জানা গেছে গোয়াইনঘাট ও কানাইঘাট উপজেলার বিভিন্ন সীমান্তে ভারতিয় বি এস এফ এর গুলিতে ৩ জন মারা যায়।কাওছার আহমেদ (২৬)নামে একজনের পরিচয় নিশ্চিত হয় পুলিশ|রুস্তুম পুর ইউনিয়নের দক্ষিণ বগাইয়া গ্রামের রুসন আলির ছেলে, বাকিদের সনাক্ত করা চলছে। নৈপত্য কানাইঘাট উপজেলার ১ নং লক্ষী প্রসাদ ইউনিয়নের অন্তর্গত সড়কের বাজার। বাজারটির অবস্থান ভারতের মেঘালয় রাজ্যের সীমান্তবর্তীস্থানে। ফলে এই ইউনিয়নের উত্তর সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন ভারতীয় গরু প্রবেশ করছে সীমান্তবাজারে। সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও কানাইঘাট উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) পরিচালিত আব্দুল গফুর ওয়াকফ এস্টেস্টের মালিকানাধীন ‘সড়কের বাজার’ চলিত ১৪২৬ বাংলা সনের ১লা বৈশাখ থেকে এই জায়গাটি শুধু হাট বাজারের জন্য ইজারা দেওয়া হয়েছে। প্রতি মঙ্গলবার বাংলাদেশী গরু বিক্রি করার জন্য ইজারা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কানাইঘাটের দিঘীরপার ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মোঃ সাহাব উদ্দিন বাজারটি ইজারা নিয়ে রাখেননি কোন ধরনের বৈধতা। সাহাব উদ্দিন অবৈধ পথে ভারত থেকে আসা গরুকে রশিদের মাধ্যমে বৈধতা করে দেন।

স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে নিজস্ব প্রভাব খাটিয়ে প্রতিদিন ভারতীয় ৪/৫ হাজার গরু মহিষ থেকে গরু প্রতি ১ হাজার টাকা ও মহিষ প্রতি ১ হাজার ৩শ টাকা করে গড়ে ৪৫ থেকে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা আদায় করে যাচ্ছেন। এছাড়া প্রতিদিন প্রায় ২/৩ হাজার লোক ভারতীয় গরু আনার জন্য ভারতে অবৈধ প্রবেশ করে। শুধু গরু প্রবেশে টাকা আদায় নয়, এই সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন চোরকারবারিদের ভারতে পাচার করেও দৈনিক টাকা আদায় করে যাচ্ছে। আর এই পাচারের মধ্য দিয়ে মাথাপ্রতি দৈনিক ২০০ টাকা হারে অবৈধভাবে টাকা আদায় করছে। যার পরিমান দৈনিক গড়ে ৫ লাখ টাকারও বেশি হবে।

 

বাজার ইজারাদার এসকল অপকর্মে কেউ বাধা হয়ে দাঁড়ালে ওই প্রতিবাদী লোকদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ ও সাজানো চাঁদাবাজির মামলা দিয়ে ফাসিয়ে দেন সাহাব উদ্দিন ।

বাজারে ভারতীয় গরু আসা বন্ধের জন্য সিলেট জেলা পুলিশ সুপারসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট আশু হস্থক্ষেপ কামনা করছেন কানাইঘাট উপজেলার সচেতন মহল।