সিলেট ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

বিছনাকান্দি আনফরের ভাঙ্গা সেতুর ভিত্তি-প্রস্থর স্থাপন; খুলবে পর্যটনে নতুন সম্ভাবনার দুয়ার

Stuff
প্রকাশিত নভেম্বর ১৩, ২০২৩, ১১:৩৩ অপরাহ্ণ
বিছনাকান্দি আনফরের ভাঙ্গা সেতুর ভিত্তি-প্রস্থর স্থাপন; খুলবে পর্যটনে নতুন সম্ভাবনার দুয়ার

আওয়াজ প্রতিবেদক:: প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি বলেছেন, সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার বিছনাকান্দি ইউনিয়নের লুনি নদী (আনফরের ভাঙ্গায়) সেতু নির্মাণ হলে শুধু বিছনাকান্দি ইউনিয়নবাসী নয় বরং এর উপকার পাবে পুরো সিলেটবাসী।

মন্ত্রী বলেন, এ সেতুটি নির্মাণ হলে সিলেটের পর্যটনে নতুন সম্ভাবনার দুয়ার খুলবে। দেশ-বিদেশ থেকে সিলেটে ঘুরতে আসা ভ্রমণপিপাসুরা যাতে মাত্র দুই দিনে ২৩টি পর্যটন স্পট ঘুরে দেখতে পারেন সে লক্ষেই সরকার কাজ করছে। মন্ত্রী জানান আনফরের ভাঙ্গায় সেতু নির্মাণের পাশাপাশি গোয়াইনঘাটের জাফলং থেকে কোম্পানীগঞ্জের ভোলাগঞ্জ পর্যন্ত ভারতীয় সীমান্ত ঘেঁষে ৩০ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। মন্ত্রী বলেন সীমান্ত এলাকার মানুষের কর্মসংস্থান ও পর্যটনশিল্পে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ সম্ভাবনার বিষয়টি মাথায় রেখে দ্রুত পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরকে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নির্দেশনা অনুযায়ী ইতোমধ্যে প্রাথমিক জরিপ সম্পন্ন করেছে সিলেট সড়ক ও জনপথ বিভাগ। মন্ত্রী বলেন, সীমান্তঘেঁষা ৩০ কিলোমিটার পথে ভ্রমন পিয়াসুরা ভারত সীমান্তঘেঁষা অধিকাংশ স্থানের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে পরবেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, সরকারের উন্নয়ন পরিক্রমায় সীমান্তবর্তী এলাকার মানুষকে সম্পৃক্ত করার লক্ষে পর্যটনমুখী কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে এ উদ্দোগ সরকার হাতে নিয়েছে। মাত্র ৩০ কিলোমিটারের রাস্তা এ অঞ্চলের পর্যটনশিল্পকে আমূল বদলে দেবে। এই সড়ক ঘিরে সবুজ পাহাড়ের নিচে গড়ে উঠবে হোটেল-মোটেল-রিসোর্ট। সেই সঙ্গে সীমান্ত এলাকার গ্রামগুলোয় ইকো ট্যুরিজমের সুযোগ তৈরি হবে।

সোমবার (১৩ নভেম্বর) সকাল ১১ টায় গোয়াইনঘাট উপজেলার বিছনাকান্দি ইউনিয়নে লুনি নদী (আনফরের ভাঙ্গায়) ৩৯ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন সেতুর ভিত্তি-প্রস্থর স্থাপন কালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফারুক আহমদ,জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ, গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিলুর রহমান, গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ফজলুল হক, গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল ইসলাম, গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আসলাম, সাধারণ সম্পাদক ও পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া হেলাল, সিলেট জেলা পরিষদ সদস্য সুবাস দাস, রুস্তুমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন, পূর্ব আলীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, ডৌবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম নিজাম উদ্দিন, উত্তর রনিখাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফয়জুর রহমান, গোয়াইনঘাট উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ফারুক আহমদ, রুস্তুমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আশিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, রুস্তুমপুর ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক ও ইউপি সদস্য কামাল আহমদ, যুগ্ম আহবায়ক ফয়ছল আহমদ, যুবলীগ নেতা আবুল হোসেন, রুস্তুমপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও যুবলীগ নেতা মুজিবুর রহমান প্রমু